1. admin@theinventbd.com : admin :
  2. worksofine@rambler.ru : JefferyDof :
  3. kevin-caraballo@mainello5.tastyarabicacoffee.com : kevincaraballo :
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৩৪ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
সৈয়দপুরে জীবিত স্বামীকে মৃত দেখিয়ে ১৭ বছর থেকে বিধবা ভাতা উত্তোলন, সমাজসেবা কর্তৃপক্ষ নির্বিকার ঝিকরগাছায় আর্সেনিক ঝুঁকি নিরসন প্রকল্পের অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত জলঢাকায় ১১ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশের মাঝে ১০৯টি বাইসাইকেল বিতরণ জলঢাকায় যানজটে জনদুর্ভোগ বেড়েই চলছে : নিরসনের দাবি পৌরবাসির বেনাপোলে গৃহহীনদের ঘর নিয়ে ভুমি অফিসের সহকারীর বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ। ঝিকরগাছায় সাপের কামড়ে ১ গৃহবধূর মৃত্যু বেনাপোলে র‍্যাবের অভিযানে গাজাসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী আটক সৈয়দপুরে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বাইসাইকেল বিতরণ সৈয়দপুরে সাহিত্য আসরের ৪থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন সৈয়দপুরে উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় বক্তারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রকৃত সৈনিকেরা ষড়যন্ত্রকে ভয় পায়না তারা লড়াই করেই বাঁচে, বিজয়ী হয়

বাগেরহাটে ঈদ বাজারে ক্রেতাদের ভিড়

অনলাইন ডেস্ক |
  • প্রকাশকাল | সোমবার, ৩ মে, ২০২১
  • ৬৫ বার পঠিত

বাগেরহাট শহরের অধিকাংশ কাপড়ের দোকানে ঈদের কেনাকাটা করতে আসা ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড়। দোকানে আসা ক্রেতাদের মুখে মাস্ক থাকলেও কারও শারীরিক দূরত্ব মানার বালাই নেই।

স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই দোকানগুলোতে চলছে ঈদের কেনাবেচা। সরকার ঈদ বাজারের নির্দিষ্ট সময়সীমা বেঁধে দেয়ায় দোকানে ভিড় হচ্ছে বলে স্বীকার করলেও ব্যবসায়ীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনেই কেনাবেচা করছেন বলে দাবি করেন। তবে ঈদে কেনাবেচার সময় বাড়ানোর দাবি তুলেছেন ব্যবসায়ীরা।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সারাদেশে সরকার সকাল দশটা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান খোলা রাখার নির্দেশনা জারি করে।

সোমবার দুপুরে বাগেরহাট শহরের বণিকপট্টি, কাজী নজরুল ইসলাম সড়ক, মেইনরোড এলাকায় সরজমিনে ঘুরে এই চিত্র দেখা গেছে।

শহরের অন্যতম বড় কাপড়ের দোকান শ্রীমা বস্ত্রালয়ে সব সময় ভিড় লেগেই থাকে। ক্রেতাদের মুখে মাস্ক থাকলেও গা ঘেঁষাঘেঁষি করে দোকানে চলছে কেনাবেচা। কেউ দাঁড়িয়ে কেউ বসে কেনাবেচা করছেন। বাগেরহাট শহরের অধিকাংশ গার্মেন্টস ও কাপড়ের দোকানে একই চিত্র।

শহরের বণিকপট্টির শ্রীমা বস্ত্রালয়ের মালিক উত্তম সাহা বলেন, করোনায় সরকার নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দিয়েছে। সময়টা যদি বেশি হত তাহলে বেচাকেনা করতে সুবিধা হত। সর্ট সময় হওয়ায় ক্রেতারা দোকানে ভিড় করছে। এ বছর বেচাকেনা কম। করোনার সময়ে দুপুর একটা পর কোন ভিড় থাকে না বলে দাবি এই ব্যবসায়ীর। যা কেনাবেচা দুপুরেই হয়। ইফতারির পর দোকানে ক্রেতা থাকে না তাই সময় বাড়লে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কেনাবেচা করা যেত বলে মনে করেন এই ব্যবসায়ী।

ঈদে কেনাকাটা করতে আসা শহরের কোর্ট মসজিদ রোডের বাসিন্দা শামছুল হাদি বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে ঈদের কেনাকাটা করতে ত্রেতারা আগ্রহী থাকলেও দোকানগুলো উপচেপড়া ভিড় রয়েছে। ইচ্ছা থাকলেও স্বাস্থ্যবিধি পুরোপুরি মেনে চলা যাচ্ছে না। ত্রেতারা স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করেই কেনাকাটা করছেন। এ বছর কাপড়ের দাম বেশি নিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন এই ক্রেতা।

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক আ ন ম ফয়জুল হক বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে জেলায় ১৪টি ভ্রাম্যমাণ আদালত মাঠে রয়েছে। ব্যবসায়ীরা সবাই যাতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কেনাবেচা করেন সেজন্য তাদের নির্দেশনা দেয়া আছে। যারা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ভ্রাম্যমাণ আদালত গত ২২ দিনে অন্তত চারশও অধিক মামলা করেছে। সেইসাথে অর্থদণ্ডও দেয়া হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

এই বিভাগের আরও খবর
Copyright © The Invent
error: Content is protected !!