1. admin@theinventbd.com : admin :
  2. worksofine@rambler.ru : JefferyDof :
  3. kevin-caraballo@mainello5.tastyarabicacoffee.com : kevincaraballo :
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:০৭ অপরাহ্ন
সর্বশেষ
জলঢাকায় ফেন্সিডিল সহ গ্রেফতার- ২ পলাতক-১’জন মোটরসাইকেল জব্দ সৈয়দপুরে জীবিত স্বামীকে মৃত দেখিয়ে ১৭ বছর থেকে বিধবা ভাতা উত্তোলন, সমাজসেবা কর্তৃপক্ষ নির্বিকার ঝিকরগাছায় আর্সেনিক ঝুঁকি নিরসন প্রকল্পের অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত জলঢাকায় ১১ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশের মাঝে ১০৯টি বাইসাইকেল বিতরণ জলঢাকায় যানজটে জনদুর্ভোগ বেড়েই চলছে : নিরসনের দাবি পৌরবাসির বেনাপোলে গৃহহীনদের ঘর নিয়ে ভুমি অফিসের সহকারীর বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ। ঝিকরগাছায় সাপের কামড়ে ১ গৃহবধূর মৃত্যু বেনাপোলে র‍্যাবের অভিযানে গাজাসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী আটক সৈয়দপুরে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বাইসাইকেল বিতরণ সৈয়দপুরে সাহিত্য আসরের ৪থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন

নদী থেকে পাইপলাইনে ঘরে ঘরে যাবে খাবার পানি

অনলাইন ডেস্ক |
  • প্রকাশকাল | মঙ্গলবার, ৪ মে, ২০২১
  • ১৩৫ বার পঠিত

পাইপলাইনের মাধ্যমে বাড়ি বাড়ি বিশুদ্ধ খাওয়ার পানি সরবরাহের উদ্যোগ নিয়েছে রাজশাহী ওয়াসা। নদীর পানি শোধন করে সেই পানি বাড়ি বাড়ি সরবরাহ করার জন্য একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। ৪ হাজার ৬২ কোটি টাকার বিশাল বাজেটের প্রকল্পটির কাজ আগামী জুলাই থেকে শুরু করা যাবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। প্রকল্পের কাজ শেষ হলে রাজশাহী শহর ছাড়াও গোদাগাড়ী, নওহাটা ও কাটাখালী পৌরসভায় এই পানি সরবরাহ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে রাজশাহী ওয়াসা।

তারা জানিয়েছে, প্রকল্পের মাধ্যমে নদীর পানি শোধন করে পানের উপযোগী করা হবে। ওয়াসার এই পানি শোধনাগার নির্মাণে আর্থিক সহায়তা দেবে চীনের হুনান কনস্ট্রাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ কোম্পানি লিমিটেড। গত ২১ মার্চ রাজশাহী ওয়াসা ও চীনের হুনান কনস্ট্রাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ কোম্পানি লিমিটেডের মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। ওই দিন রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ের কনফারেন্স রুমে এই চুক্তি হয়। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে প্রতিদিন ২০ কোটি লিটার বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করা হবে। প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৪ হাজার ৬২ কোটি টাকা। এর মধ্যে ২ হাজার ৭০০ কোটি টাকা ঋণ দেবে চীনের হুনান কনস্ট্রাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড।

রাজশাহী নগরবাসীর মধ্যে সিটি করপোরেশনের পানি শাখার মাধ্যমেই পানি সরবরাহ দেওয়া হতো। ২০১০ সালের ১ আগস্ট প্রতিষ্ঠা হয় রাজশাহী ওয়াসা। এর পর থেকে ওয়াসা রাজশাহী শহরে পানি সরবরাহ করে থাকে। ১০৩টি গভীর নলকূপে পানি উত্তোলন করে পাইপলাইনের মাধ্যমে পানি সরবরাহ করা হয়ে থাকে। এসব নলকূপে প্রতিদিন সাড়ে ৯ কোটি লিটার পানি উত্তোলন করা হয়। এই পানি সরবরাহে শহরে প্রায় ৭১২ কিলোমিটার পাইপলাইন রয়েছে।

রাজশাহী ওয়াসার প্রধান প্রকৌশলী পারভেজ মামুদ জানান, রাজশাহী মহানগরবাসীর মধ্যেই বর্তমানে পানি সরবরাহ দিয়ে থাকে ওয়াসা। ওয়াসা কর্তৃপক্ষ বেশ কয়েক বছর ধরেই ভূগর্ভস্থ পানির চাপ কমানোর ওপর জোর দিয়ে আসছিল। ২০১৫ সালে তারা পদ্মা নদীর পানি শোধন করে সরবরাহের উদ্যোগ গ্রহণ নেয়। ওই বছরই এই প্রকল্পের খসড়া সম্পন্ন করা হয়। ২০১৮ সালের ১১ অক্টোবর জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) সভায় অনুমোদন লাভ করে। রাজশাহী শহর থেকে প্রায় ৩৩ কিলোমিটার দূরে গোদাগাড়ী উপজেলার সারাংপুরে তাদের প্রকল্পটি স্থাপনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। প্রকৌশলী পারভেজ মামুদ জানান, এরই মধ্যে সেখানে ৫২ একর জমি অধিগ্রহণের কাজ শেষ হয়েছে। প্রায় ৯৮ কোটি টাকা খরচ হয়েছে জমি অধিগ্রহণে। এখানকার পানি শুধু রাজশাহী শহরের বাসিন্দারাই পাবেন, এমন নয়। এই পানির সুবিধা পাবে শহরের পাশর্^বর্তী তিনটি পৌরসভা এলাকার মানুষও। রাজশাহী মহানগরী ছাড়াও গোদাগাড়ী, কাটাখালী ও নওহাটা পৌরসভায় এই পানি সরবরাহ করা হবে।

রাজশাহী ওয়াসার প্রধান প্রকৌশলী বলেন, গোদাগাড়ীর সারাংপুরে নদীর পানি শোধন করে সেখান থেকে পাইপলাইনের মাধ্যমে পানি সরবরাহ দেওয়া হবে। রাজশাহী শহরে ওয়াসার যে পাইপলাইন নেটওয়ার্ক, সেই নেটওয়ার্কের মাধ্যমে তা নগরীর বাড়ি বাড়ি সরবরাহ করা হবে। এই পানি সরবরাহের জন্য পাইপলাইন নেটওয়ার্কেরও কিছু সংস্কার করা হবে। বিশুদ্ধ পানি বাড়িতে পৌঁছা পর্যন্ত যাতে খাওয়ার উপযোগী থাকে, সে জন্য উদ্যোগ নেওয়া হবে।

টাকা ছাড় পাওয়ার পর আগামী জুলাই মাস থেকেই এখানে পুরোদমে কাজ শুরু হবে বলে জানান ওয়াসার প্রধান প্রকৌশলী। এটির মেয়াদকাল ধরা হয়েছে চার বছর। প্রকল্পের কাজ শেষ হলে রাজশাহী শহরে শতভাগ পানির চাহিদা পূরণ করা হবে। তবে পানির উৎপাদন খরচ কিছুটা বাড়বে বলে জানিয়েছে ওয়াসা।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

এই বিভাগের আরও খবর
Copyright © The Invent
error: Content is protected !!