1. admin@theinventbd.com : admin :
সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ১১:২৭ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
করোনা: ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু আরও ২২৮, শনাক্ত ১১২৯১ সৈয়দপুরে ৬ মামলা ২০ হাজার জরিমানা ও একজনের জেল অক্সিজেন সেবা নিয়ে করোনা রোগীদের পাশে কিশোরগঞ্জে সিসি ক্যামেরায় গরু চোর শনাক্ত-৪ ঘন্টায় উদ্ধার জলঢাকায় কোরবানির গোস্ত নিয়ে দুস্তদের দুয়ারে দুয়ারে গেলেন ইউএনও মাহবুব হাসান আরও ১৯৫ মৃত্যুতে করোনায় প্রাণহানি ১৯ হাজার ছাড়াল লকডাইন অমান্য করে সৈয়দপুরে পুলিশ কর্মকর্তাকে পেটানোর মামলায় ব্যবসায়ীর দুই পুত্র আটক কিশোরগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের স্বপ্নের ঘরে প্রথম ঈদ সৈয়দপুরে বিধিনিষেধ অমান্য করায় ২১মামলা ১ জনের ৭দিনের জেল নীলফামারীতে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেলেন এক হাজার পরিবার

জলঢাকায় ঈদ শুভেচ্ছা উপহার পেয়ে খুশিতে কাদঁলেন এক নারী

স্টাফ রিপোর্টারঃ
  • প্রকাশকাল | মঙ্গলবার, ১১ মে, ২০২১
  • ৬৩ বার পঠিত
মধ্যবিত্ত পরিবারের আয়শা বেগম, ঈদ উপহারের প্যাকেট খুশিতে কাদঁলেন। তার ছলছল করে বেড়িয়ে পড়া চোখের পানি মুছতে মুছতে ঈদ উপহার বুকে নিয়ে চলে যায়।
ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের সৌজন্যে মঙ্গলবার জলঢাকা পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে কর্মহীন  দুস্তদের মাঝে করোনাকালীন ঈদ শুভেচ্ছা উপহার বিতরণ করেন,
আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাবেক প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার ড. তুরিন আফরোজ। প্রতিটি প্যাকেটের মধ্যে ছিল, শাড়ি, লুঙ্গি চিনি ও সেমাই। পৌরসভা সহ উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে ২ হাজার ৫ শতজন এই উপহার পায়। এ বিতরণ অনুষ্ঠানে চোখে পড়ে দুস্তদের পাশাপাশি মধ্যবিত্তদের ঈদ উপহার গুলোর দিকে চাতক পাখির মতো চেয়ে থাকার দৃশ্য।
ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশন সৌজন্যে তারা ঈদ উপহার সামগ্রী পাবে, সে আশায় চেয়ে থাকা।
কথা হয়, মায়ের সাথে আসা আয়শা বেগমের পরিবারের মন্নুজার সাথে। পৌরশহরে তাদের ছিল রিক্সা/ভ্যান ও বাইসাইকেলের বড় ব্যবসা। তত্বাবধায়ক সরকার আমলে সেটি ভেঙ্গে দেওয়ার পর অর্থনীতিক এবং মানুষিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় আর দ্বার হতে পারেনি তারা।
উপহার পেয়ে চোখে পানি কেন জানতে চাইলে সে জানায়, বাবা – মা দুজনেই মানুষিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছে।
এখন খুবেই কষ্টে চলছে সংসার।
বাবা – মাকে কাপড় কিনে দিবো তার কোনও উপায় নেই।
ঠিক এর একটু ব্যতিক্রম করে বিভিন্ন পাড়া মহল্লা থেকে আসা নুরবানু, মেহেন্নাজ, কালটি, সামিয়ন, তহিমা মহিতন, পরিনা, আব্বাস ও মতিয়ার রহমানকে সাথে নিয়ে হান্নান টিটু বলেন, তুরিন আপার নাম শুনেছি, কিন্তু কোনদিন তাকে দেখিনি।
ভাগ্যে আজ যখন কাছাকাছি হইলাম, তখন উনি আমাকে ঈদের শুভেচ্ছার সাথে উপহারও দিলেন। তার এই উপহার পেয়ে আনন্দে বুকটা ভরে গেল। আপাকে দেওয়ার মতো আমাদের কিছু নেই। তবে দোয়া করি, আপা সুস্থ্য থাক, এই অঞ্চলের মানুষের সেবার জন্য।
টানা চারদিন ধরে চলমান বিতরণ কার্যক্রমে শেষ মঙ্গলবারেও বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের প্রধান সমন্নয়ক এনামুল হক, শিক্ষক সংঘের সভাপতি অনিল চন্দ্র রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুজ্জামান, সনাতন সম্প্রীতি সংঘের সভাপতি রঞ্জিৎ কুমার রায়, সাধারণ সম্পাদক ছপিয়ার রহমান, শিক্ষক নেতা  স্বাধীন চৌধুরী ফাউন্ডেশনের
তৈয়ব বিল্লা, শাহিন, টিটু ও আলমগীর প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

এই বিভাগের আরও খবর
Copyright © The Invent
error: Content is protected !!