1. admin@theinventbd.com : admin :
  2. worksofine@rambler.ru : JefferyDof :
  3. kevin-caraballo@mainello5.tastyarabicacoffee.com : kevincaraballo :
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১০:৫১ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
জলঢাকায় ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের কর্মীসভা অনুষ্ঠিত জলঢাকায় ইএসডিও- ডাভ সেলফ এস্টিম প্রকল্পের অবহিতকরন সভা অনুষ্ঠিত তিস্তায় পানি বৃদ্ধি ২২ গ্রাম প্লাবিত হুমকির মুখে তিস্তার তীরবর্তী মানুষ জলঢাকায় ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন পালন জলঢাকায় শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন পালন করেছে যুবলীগ জলঢাকায় ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে নারী উদ্দোক্তা প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত আনন্দের ভাগিদার হতে ছুটে এসেছি জলঢাকায় পূজা মন্ডপ পরিদর্শনে ড. তুরিন আফরোজ জলঢাকায় মঙ্গলদ্বীপের উদ্যোগে দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত জলঢাকায় প্রতিমাকে দৃষ্টিনন্দন করতে রং তুলির কাজে ব্যস্ত এখন কারিগররা জলঢাকায় অনির্বাণ স্কুলে একাডেমিক ভুবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

রোজার আগেই নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি, অস্বস্তিতে রংপুরের মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক,রংপুর
  • প্রকাশকাল | শুক্রবার, ১৯ মার্চ, ২০২১
  • ৭০ বার পঠিত

রংপুরের বাজারে সবজির দাম কিছুটা কমলেও ঊর্ধ্বমুখী নিত্যপণ্যের দাম। খুচরা বাজারে দাম বাড়ছে আলু ও পেঁয়াজের। জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারিসহ মার্চের প্রথম দিকে সবজির বাজার ছিল অনেক চড়া। মার্চের শেষ সপ্তাহে এসে সবজির অনেকটা কমে গেছে। তবে লাগামহীন বেড়েই চলছে বাজারে তেল ও চালসহ নিত্যপণ্যের দাম।

শুক্রবার (১৯ মার্চ) সকালে সবজি বাজার দর-পেঁয়াজ ৪০-৪২, রসুন ৬০-৭০, সরিষা, মসুর ডাল ১০০-১০৫ টাকা কেজি, তেল তীর ও রূপচাঁদা-৫ লিটার-৬৩০ টাকা, চিনি-৬৮ টাকা, ফুলকপি ২০-২২ টাকা প্রতি পিস। বাঁধাকপি প্রতি পিস ১০-১২ টাকা, শসা ৩৫-৪০টাকা কেজি, টমেটো ১৫-২০ ও দেশি টমেটো-৪০ টাকা কেজি, কাঁচা পেঁপে ২০-২২ টাকা, ঢেঁড়স ৪৫-৫০ টাকা, শিম ২০-২৫ টাকা, বেগুন ২০-২৫ টাকা, কাঁচামরিচ ৩০-৪০ টাকা কেজি এবং লাউ প্রতি পিস ২০-২৫ টাকা, দেশি শিল আলু দাম ২০-২৫ টাকা, পটোল ৪০-৪৫ টাকা কেজি ও করলা ৩০-৩৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

কৃষি বিভাগের তথ্য অনুযায়ী রংপুরসহ বিভাগের ৮ জেলায় চলতি বছর সবজি আবাদ হয়েছে প্রায় ১৯ হাজার ৮৯০ হেক্টর জমিতে। চাষিরা বলছেন, বেশি দামের আশায় তারা এ বছর সবজি চাষে ঝুঁকে পড়েছেন। ফলনও অনেক ভালো হয়েছে। তবে শেষ দিকে দাম কমে যাওয়ায় লোকসান গুনতে হচ্ছে চাষিদের।

রংপুর জেলা তেল ও চিনি ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি কাজী মো. জুন্নুন বলেন, চিনি ও তেলের দাম বৃদ্ধির কারণ হল মিল মালিকরা সরবরাহ কমিয়ে দিলে বাজারে পণ্যের ঘাটতি দেখা দেয়। এর ফলে পণ্যের দাম বেড়ে যায়। আর মিল মালিকরা তাদের সরবরাহ স্বাভাবিক রাখলে এই সমস্যা হতো না। সামনে রমজান এ ভাবেই ভোজ্য তেলের দাম বৃদ্ধি পেলে সাধারণ মানুষ সমস্যায় পড়বে।

পাইকারি ও খুচরা বাজারেও চালের দাম বেড়ে গেছে। লতা চালের ৫০ কেজির বস্তা, ২৫ শ থেকে ২৬ শ টাকা খুচরা ও পাইকারি বাজারে বিক্রি হচ্ছে। মিনিকেট চাল বস্তাপ্রতি ২০০ টাকা বৃদ্ধিতে এখন ৩ হাজার থেকে ৩ হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বিভিন্ন নামে চাল প্রতি কেজিতে ১০-১৫ টাকা বাড়ছে। ভোজ্য তেলের মধ্যে শুধু সোয়াবিন তেলের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। আন্তর্জাতিক বাজারে সোয়াবিন তেলের দাম বৃদ্ধি হওয়ায় বাংলাদেশে এই ভোজ্য তেলের দাম বেড়ে গেছে।

রংপুর জেলায় ছোট বড় মিলে ২ শতাধিক বাজার বসে প্রতিদিন। এসব বাজারে মার্চের প্রথম সপ্তাহ থেকে (১৯ মার্চ) পর্যন্ত সবজির বাজার ওঠানামা করছিল। আর গত ১০ তারিখ থেকে প্রতিদিন পাইকারি ও খুচরা বাজারে সবজির দাম কমতে শুরু করছে। কেজিপ্রতি ১০-১৫ টাকা কমে গেছে সবজির দাম। দাম কমে যাওয়ায় কৃষক ও খুচরা ব্যবসায়ীদের লোকসান হচ্ছে বলে দাবি তাদের।

রংপুর পৌরবাজার ব্যবসায়ী মেসার্স বাবুল স্টোরের প্রো. মো. বাবুল মিয়া বলেন, এক মাস আগে থেকে নিত্যপণ্যের দাম ঊর্ধ্বমুখী। তেলের দাম বেড়েই চলছে। এতে ক্রেতাদের নিত্যপণ্য ক্রয় করতে হিমশিম ক্ষেতে হচ্ছে।

ডিসি আসিব আহসান জানান, বাজারে সবজির দাম নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। তবে নিত্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। সরকার নির্ধারিত মূল্যের বেশি কেউ বিক্রি করতে পারবে না। যারা করবেন তদন্ত করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

এই বিভাগের আরও খবর
Copyright © The Invent
error: Content is protected !!