1. admin@theinventbd.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ০৬:৪৭ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
সৈয়দপুরে ৮ বছরের শিশুকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে একমাস ধরে ধর্ষণের অভিযোগ।। হাতেনাতে সৎ নানা আটক কিশোরগঞ্জে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির ভাতাভোগীদের ৯ মাসের টাকা বেহাত কিশোরগঞ্জে ১টি পরিবারকে ৫ দিন ধরে অবরুদ্ধ রাখার অভিযোগ সৈয়দপুরে চালককে ছুরিকাঘাত করে ভ্যান ছিনতাই নীলফামারীতে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী দুই শিক্ষার্থী পেল পোর্টেবল ভিডিও ম্যাগনিফায়ার জলঢাকায় ববিতা রানী সরকারের প্রতিবন্ধীর মাঝে হুইল চেয়ার বিতরন আমজাদ সরকার সভাপতি ও খায়রুল সম্পাদক জলঢাকায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর কমিটি গঠন জলঢাকায় হরিজন সম্প্রদায়ের অধিকার প্রতিষ্ঠার লড়াই করবেন ব্যারিস্টার তুরিন মিথ্যা প্রতিবেদন প্রকাশের প্রতিবাদে সৈয়দপুর উপজেলা চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন সৈয়দপুরে গোয়াল ঘরের তালা কেটে গাভী চুরি

দেশ জুড়ে কদর বেড়েছে পঞ্চগড়ের সুপারির

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশকাল | সোমবার, ১৭ মে, ২০২১
  • ১৮ বার পঠিত

বাঙালির সুপ্রাচীন কালের ঐতিহ্য পান-সুপারি। ভোজনের অনুষ্ঠান শেষে কিংবা বাড়িতে অতিথি আপ্যায়নে যেন এর জুড়ি নেই। দেশের প্রায় সর্বত্র সুপারি উৎপাদন হলেও কয়েকটি জেলায় এর আবাদ বেশি হয়ে থাকে। তার মধ্যে উত্তরের জেলা পঞ্চগড় অন্যতম।

উত্তরের এ প্রান্তিক জেলায় বাণিজ্যিকভাবে পানের আবাদ শুরু হয়েছে কয়েক বছর আগে। তবে পানের পাশাপাশি বাণিজ্যিকভাবে সুপারিরও চাষ হচ্ছে। নিজেদের চাহিদা মিটিয়ে অন্যত্র বিক্রি করতে বাড়ির আঙিনায় সুপারির গাছ লাগিয়েছেন অনেকেই। কেউবা জমির সীমানা ঠিক রাখতে লাগিয়েছেন এই গাছ। আবার কেউ শখের বসে সুপারি গাছ লাগিয়ে প্রতি বছর মোটা অংকের টাকা পাচ্ছেন।

জেলার সদর, আটোয়ারী, তেঁতুলিয়া ও দেবীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সুপারি গাছ চোখে পড়ে। এ গাছ রোপণে তেমন কোনো পরিচর্যার প্রয়োজন পড়ে না। প্রয়োজন হয় না কোন কিটনাশক কিংবা সেচের। ফলে বিনা পুঁজিতেই সুপারি বিক্রি করে লাভবান হচ্ছেন স্থানীয়রা। বিশেষ করে পঞ্চগড়ের সুপারির আকার, স্বাদ ও রং তুলনামূলকভাবে বড় হওয়ায় এ জেলার সুপারি স্থানীয় বাজারের চাহিদা মিটিয়ে রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলায় যাচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, একটি গাছে ৮০ থেকে ১২০ হালি সুপারি ধরে। দাম ভালো পাওয়ায় প্রয়োজনের অতিরিক্ত সুপারি বাজারে বিক্রি করে অনেকেই লাভবান হচ্ছেন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মিজানুর রহমান জানান, পঞ্চগড়ে আগে সুপারির চাষ হতো না। তবে এ জেলার মাটি সুপারি চাষের উপযোগী হওয়ায় স্থানীয়রা বাণিজ্যিকভাবে সুপারির চাষ শুরু করেছে। তবে ফল আসা শুরু হয়নি। অনেকেই নিজেদের চাহিদায় বাড়িতে সুপারির গাছ রোপণ করেছেন। আর নিজেদের প্রয়োজনে বাড়িতে সুপারি গাছ রোপণ করা গাছ থেকেই সুপারি বিক্রি করছে অনেকেই। এ জেলার উৎপাদিত সুপারির মান ভাল হওয়ায় অন্যান্য জেলায় বেশ কদর রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

এই বিভাগের আরও খবর
Copyright © The Invent
error: Content is protected !!