1. admin@theinventbd.com : admin :
  2. worksofine@rambler.ru : JefferyDof :
  3. kevin-caraballo@mainello5.tastyarabicacoffee.com : kevincaraballo :
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৯:১৯ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
জলঢাকায় ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের কর্মীসভা অনুষ্ঠিত জলঢাকায় ইএসডিও- ডাভ সেলফ এস্টিম প্রকল্পের অবহিতকরন সভা অনুষ্ঠিত তিস্তায় পানি বৃদ্ধি ২২ গ্রাম প্লাবিত হুমকির মুখে তিস্তার তীরবর্তী মানুষ জলঢাকায় ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন পালন জলঢাকায় শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন পালন করেছে যুবলীগ জলঢাকায় ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে নারী উদ্দোক্তা প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত আনন্দের ভাগিদার হতে ছুটে এসেছি জলঢাকায় পূজা মন্ডপ পরিদর্শনে ড. তুরিন আফরোজ জলঢাকায় মঙ্গলদ্বীপের উদ্যোগে দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত জলঢাকায় প্রতিমাকে দৃষ্টিনন্দন করতে রং তুলির কাজে ব্যস্ত এখন কারিগররা জলঢাকায় অনির্বাণ স্কুলে একাডেমিক ভুবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

নীলফামারী কিশোরগঞ্জে প্রকৃতিতে হলদে হাসির সৌরভে রঙ ছড়াচ্ছে সোনাইল ফুল

জয়নাল আবেদীন হিরো,স্টাফ রিপোর্টার :
  • প্রকাশকাল | মঙ্গলবার, ১৮ মে, ২০২১
  • ৮৪ বার পঠিত

গ্রীষ্মের খড় রুদ্র তাপে সোনাইল ফুল পসরা সাজিয়েছে নীলফামারী কিশোরগঞ্জের সবুজেের কুঞ্জবনে।এতে প্রকৃতিপ্রেমীরা খুঁজে পেয়েছে তার আপন ঠিকানা। স্বর্ণালী রঙের   বর্ণিলতায় প্রকৃতিতে রঙ ছড়াছে আপন মনে সোনাইল ফুল। বৈশাখের শেষ খরতাপেও পথিকের নজর কাড়ছে এই ফুল। হাওয়ায় দুলতে থাকা হলুদ-সোনালি রঙের থোকা থোকা ফুল কিশোরীদের পুষ্পার্ঘ নিবেদনে হাতছানি দিয়ে  ডাকছে। আবার ফুলের ফাঁকে দুলছে  লম্বা ফল। এই ফলকে অনেকেই বাঁদর লাঠি হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। হলুদ বরণ সৌন্দর্যে মাতোয়ারা হয়ে তার সান্নিধ্য পেতে আসে প্রকৃতিপ্রেমীরা। এই ফুল নিজের রূপলাবণ্যর আভা ছড়িয়ে দিয়েছে পুরো উপজেলায় । গ্রীষ্মের প্রকৃতিতে প্রাণের সজীবতা নিয়ে ফোটে সোনাইল। প্রাকৃতিকভাবে বেড়ে ওঠা সোনাইল ফুল গাছ তার হলুদ-সোনালি রঙের সৌন্দর্য বিতরণ করেই অস্তিত্ব টিকিয়ে রেখেছে। অযত্ন-অবহেলায় বেড়ে উঠলেও তার রূপে আকৃষ্ট হয়ে কাছে আসে সবাই, ক্যামেরায় বন্দি করে রাখে তার সোনা মাখা রঙ। গেল কয়েক বছর আগে পথে-প্রান্তরে হলুদ সোনাইল ফুলের আধিক্য ছিল প্রকৃতি জুড়ে।এখন এ ফুল নেই বললে চলে।তাই প্রকৃতিকে বাঁচার তাগিদে  কৃষ্ণচূড়া, শিমুল, পলাশ,সোনাইল,জারুল  জাতীয় গাছ লাগিয়ে সৌন্দর্য বর্ধন করার দাবি উপজেলা বাসির। এতে প্রকৃতি ফিরে পাবে তার আপন রূপ, নির্মল  বাতাসে সজীবতা ফিরে পাবে মানুষজন।আর কবি সাহিত্যিকগণও খুঁজে পাবে তার কাব্যিক ভাষা।মোদ্দাকথা পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার্থে অরন্যের বিকল্প নেই।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

এই বিভাগের আরও খবর
Copyright © The Invent
error: Content is protected !!