1. admin@theinventbd.com : admin :
বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১২:১৭ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
করোনায় একদিনে আরো ২৫৮ মৃত্যু, শনাক্ত ১৪৯২৫ করোনা টেস্টে গ্রামীণ জনগণের ভীতি নিরসনে কাজ করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী সৈয়দপুরে বিধিনিষেধ না মানায় ১০ জনের ২৩ হাজার টাকা জরিমানা ও চোলাই মদসহ আটক যুবকের ৩ মাসের কারাদণ্ড সৈয়দপুর ব্যস্ততম বাজারের সড়কে ময়লার ভাগার॥ দুর্গন্ধে অতিষ্ট এলাকাবাসী ও পথচারী সৈয়দপুরে ধসে পড়ল সরকারী নির্মাণাধীন ভবন জলঢাকায় ক্যান্সার আক্রান্ত শিক্ষক মাধবকে শিক্ষক সংঘের পক্ষ থেকে চিকিৎসা সহায়তা প্রদান জলঢাকায় সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিন উপলক্ষে যুবলীগের বৃক্ষরোপণ করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ ২৪৭ মৃত্যু, ১৫১৯২ শনাক্ত সৈয়দপুরে ভুয়া কেসস্লিপসহ মাইক্রোবাস আটক করোনা: ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু আরও ২২৮, শনাক্ত ১১২৯১

আঙুলের ছাপে বিস্ময়

ইসমাঈল হোসেন দিনাজী
  • প্রকাশকাল | মঙ্গলবার, ১৫ জুন, ২০২১
  • ৪২ বার পঠিত
মানুষের দেহ মাত্র সাড়ে তিন হাত হলেও এতে যত রহস্য আর অলৌকিকতা লুকানো আছে, তার কোনো শেষ নেই। মানুষকে বুদ্ধিমান প্রাণী বলা হলেও আয়না ছাড়া নিজের মাথার পেছনটাই সে দেখতে পায় না। ঘুমিয়ে গেলে কত কিছু স্বপ্নে দেখে তারও কোনো হিসাব নেই। ঘুম ভেঙে গেলে সবই ফাঁকা। জন্মের আগে মায়ের পেটে কীভাবে ছিল মানুষ কিছুই বলতে পারে না। কত দিন বাঁচবে তা যেমন জানে না, মৃত্যুর কথাও সে বলতে পারে না। এতসব বাদ, কখন ঘুমিয়ে পড়ে মানুষ কি তা টের পায়? পায় না। ঘুম ভাঙলে বুঝতে পারে ঘুমিয়ে পড়েছিল। মানুষের ক্ষমতা এমনই সীমিত এবং নগণ্য।সৃষ্টি রহস্যের এমনই এক বিস্ময়কর বিষয়, মানুষের আঙুলের ছাপ। ষোড়শ শতকে বিজ্ঞানীদের আবিষ্কৃত ফিঙ্গারপ্রিন্টের রহস্য নিয়ে আজও গবেষণা থেমে নেই। বিজ্ঞানীরা আঙুলের ছাপ ও হস্তরেখা নিয়ে গবেষণা অব্যাহত রেখেছেন। কিছু কিছু বিষয় উন্মোচিত হয়েছে বটে, তবে তা খুবই কম। ১৬৮৪ সালে সর্বপ্রথম ইংলিশ ফিজিসিয়ান, উদ্ভিদবিজ্ঞানী এবং অণুবীক্ষণ যন্ত্রবিদ নিহোমিয়া গ্রিউ (১৬৪৭-১৭১২) বিজ্ঞান বিষয়ক সাময়িকীতে হাতের তালু ও আঙুলের ছাপ রহস্যের সংযোগসূত্রের ধারণা উত্থাপন করেন। অতঃপর ১৬৮৫ সালে ডাচ ফিজিশিয়ান গোভার্ড বিডলো (১৬৪৯-১৭১৩) এবং ইতালিয়ান বিজ্ঞানী মারসিলো বিডলো (১৬২৮-১৬৯৪) এনাটমির ওপর বই প্রকাশ করে ফিঙ্গারপ্রিন্টের ইউনিক গঠনের আলোচনা উত্থাপন করেন। ১৬৮৪ সালের পূর্বে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সম্পর্কে আর কোনো বিজ্ঞানীর আলোকপাতের কথা পাওয়া যায় না। এরপর দীর্ঘদিন অতিবাহিত হয়। ১৮০০ সালের পর ফিঙ্গারপ্রিন্ট আবারও জোরালোভাবে বিজ্ঞানীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। এ বিজ্ঞানীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন ১৮৭৫ সালে জেন জিন্সেন ও ব্রিটিশ কর্মকর্তা এওয়ার্ড হেনরি।

অবাক করার মতো বিষয় হলো, পবিত্র কোরআনে আজ থেকে ১৪০০ বছর আগে ফিঙ্গারপ্রিন্টের কথা আলোচনা করা হয়েছে। ইরশাদ হয়েছে, ‘মানুষ কী মনে করে যে আমি তার অস্থিসমূহ একত্রিত করতে পারব না? বরং আমি তার আঙুলের ডগা পর্যন্ত সঠিকভাবে সন্নিবেশিত করতে সক্ষম।’ সুরা আল কিয়ামাহ : ৩-৪

পৃথিবীর প্রত্যেক মানুষের আঙুলের ছাপ সম্পূর্ণ ভিন্ন। এটাও আল্লাহর কুদরত। পৃথিবীর সৃষ্টির প্রথম মানুষ থেকে শুরু করে শেষ মানুষ পর্যন্ত দুজনের আঙুলের ছাপ একরকম হবে না। আঙুলের ছাপের রেখার গঠন হয় মাতৃগর্ভের প্রথম তিন মাসে। আধুনিক বৈজ্ঞানিক ধারণা, আঙুলের ছাপে মানুষের সব বৈশিষ্ট্য লিপিবদ্ধ থাকে। আঙুলের ছাপকে জিনের সংরক্ষিত তথ্যের মনিটর হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। জিনের বিকল্প কাজ শুধু এই আঙুলের ছাপ দিয়েই করা সম্ভব।

বর্তমানে অপরাধ তদন্ত, পরিচয় শনাক্তসহ বিভিন্ন বিষয়ের গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার হলো আঙুলের ছাপ। এছাড়া ব্যাংক ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তাসহ স্মার্টফোনের সুরক্ষার জন্য আঙুলের ছাপ ব্যবহার করা হচ্ছে। এ রহস্যময় আঙুলের ছাপের গঠনশৈলীর সক্রিয়তার ইঙ্গিত মহান আল্লাহ কোরআনে দিয়েছেন। ইরশাদ হয়েছে, ‘কাফেররা যখন পুনরুত্থানের বিষয়ে সন্দেহ পোষণ করে হাসাহাসি করত।’ সুরা বনী ইসরাইল : ৪৯

‘তারা বলে, যখন আমরা অস্থিতে পরিণত ও চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে যাব, তখনো কি নতুন করে সৃষ্টি হয়ে উত্থিত হব?’ সুরা বনী ইসরাইল : ৯৮

একই কথা বলা হয়েছে সুরা আল মুমিনুনের ৮২ নম্বর আয়াতে। ইরশাদ হয়েছে, ‘এটাই তাদের শাস্তি। কারণ, তারা আমার নিদর্শনসমূহ অস্বীকার করেছে এবং বলেছে, আমরা যখন অস্থিতে পরিণত ও চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে যাব, তখনো কি আমরা নতুনভাবে সৃষ্টি হয়ে উত্থিত হব? ’

কোরআনে কারিমে আরও বলা হয়েছে, ‘সে আমার সম্পর্কে এক অদ্ভুত কথা বর্ণনা করে, অথচ সে নিজের সৃষ্টি ভুলে যায়। সে বলে, কে জীবিত করবে অস্থিসমূহকে যখন সেগুলো পচে গলে যাবে?’ সুরা ইয়াসিন : ৭৮

আল্লাহতায়ালা যখন কোরআনে কারিমে বারবার বিচার দিবস ও পুনরুত্থানের কথা বলেছেন তখন কাফেররা এ বলে হাসাহাসি করত যে, পচা গলা হাড়গুলো কীভাবে একত্রিত করা হবে? একজনের অস্থির সঙ্গে অন্যজনের অস্থি বদল হবে না? আল্লাহ রাব্বুল আলামিন প্রত্যুত্তরে বলেছেন, ‘মানুষ কী মনে করে যে আমি তার অস্থিসমূহ একত্রিত করতে পারব না? বরং আমি তার অঙুলগুলোর ডগা পর্যন্ত সঠিকভাবে সন্নিবেশিত করতে সক্ষম।’ সুরা আল কিয়ামাহ : ৩-৪

এখানে ফিঙ্গারপ্রিন্টের সক্রিয়তার ইঙ্গিত দিয়েছেন মহান আল্লাহ। তিনি শুধু মানুষের অস্থিতে গোশত পরিয়েই উত্থিত করাবেন না বরং এমন নিখুঁতভাবে মানুষকে জীবিত করাবেন যেন জীবদ্দশায় তার আঙুলের সূক্ষ্ম রেখা পর্যন্ত সুবিন্যস্ত করবেন। এখানে কাফেরদের অভিযোগেরও উত্তর দেওয়া হয়েছে। কাফেররা বলে, গলাপচা অস্থি কিংবা একজনের হাড়ের সঙ্গে অন্যজনের হাড় মিশ্রিত হবে না? কোরআনে কারিমে আল্লাহ বলছেন, না তা কখনো হবে না। ফিঙ্গারপ্রিন্টকে ডাটাব্যাংক বলা হয়। জিনের মধ্য সন্নিবেশিত শুধু শারীরিক বৈশিষ্ট্য নয়, প্রায় সব বৈশিষ্ট্য; এমনকি চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য পর্যন্ত আঙুলের ছাপে সুবিন্যস্ত করা থাকে।

তাই আল্লাহতায়ালা এখানে কাফেরদের জবাব প্রদান এবং জ্ঞানীদের জন্য নিদর্শন হিসেবে উল্লেখ করেছেন যে, শুধু আঙুলের ডগার প্রিন্ট দিয়ে যদি একটি মানুষের সমুদয় বৈশিষ্ট্য চিহ্নিত করা সম্ভব হয়, তাহলে প্রত্যেক মানুষকে তার নিজের অস্থি থেকে পুনর্বিন্যস্ত করা যাবে না কেন?

বলা আবশ্যক, জিহ্বা দেখে যেমন মানুষের অনেক রোগনির্ণয় করা যায়, তেমনই চোখ দেখেও অনেকের চরিত্র বিশ্লেষণ করা সম্ভব। এছাড়া বডি ল্যাঙ্গুয়েজ বলে একটা কথা আছে। অনেকের এ দেহভঙ্গির ভেতরে অনেক কিছু প্রকাশ করে দেয়। আঙুলের ছাপও অনেকটা এমন।

পৃথিবীর সর্বত্র মানুষকে সুনির্দিষ্টভাবে শনাক্ত করতে এখন আঙুলের ছাপ ভীষণ গুরুত্ব পাচ্ছে। আমাদের দেশেও জাতীয় পরিচয়পত্রে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সন্নিবেশিত করা হয়েছে। এছাড়া অন্য কোনো শনাক্তকরণ পদ্ধতির আর তেমন গুরুত্ব নেই। মানুষের চেহারা, কর্ম, কণ্ঠস্বর, রক্তের গ্রুপসহ একজনের সঙ্গে অন্যজনের অনেক কিছুর প্রায় হুবহু মিল থাকতে পারে। কিন্তু আঙুলের ছাপ একজনেরটা অন্যজনের সঙ্গে মিলবে না। এটা মহান আল্লাহর কুদরতের এক বিশাল কারিশমা।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

এই বিভাগের আরও খবর
Copyright © The Invent
error: Content is protected !!