1. admin@theinventbd.com : admin :
  2. worksofine@rambler.ru : JefferyDof :
  3. kevin-caraballo@mainello5.tastyarabicacoffee.com : kevincaraballo :
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:২৫ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
সৈয়দপুরে জীবিত স্বামীকে মৃত দেখিয়ে ১৭ বছর থেকে বিধবা ভাতা উত্তোলন, সমাজসেবা কর্তৃপক্ষ নির্বিকার ঝিকরগাছায় আর্সেনিক ঝুঁকি নিরসন প্রকল্পের অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত জলঢাকায় ১১ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশের মাঝে ১০৯টি বাইসাইকেল বিতরণ জলঢাকায় যানজটে জনদুর্ভোগ বেড়েই চলছে : নিরসনের দাবি পৌরবাসির বেনাপোলে গৃহহীনদের ঘর নিয়ে ভুমি অফিসের সহকারীর বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ। ঝিকরগাছায় সাপের কামড়ে ১ গৃহবধূর মৃত্যু বেনাপোলে র‍্যাবের অভিযানে গাজাসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী আটক সৈয়দপুরে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বাইসাইকেল বিতরণ সৈয়দপুরে সাহিত্য আসরের ৪থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন সৈয়দপুরে উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় বক্তারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রকৃত সৈনিকেরা ষড়যন্ত্রকে ভয় পায়না তারা লড়াই করেই বাঁচে, বিজয়ী হয়

খুলনা বিভাগে করোনায় মৃত্যু হাজার ছাড়াল

অনলাইন ডেস্ক |
  • প্রকাশকাল | সোমবার, ২৮ জুন, ২০২১
  • ৪৮ বার পঠিত

খুলনা বিভাগে করোনাভাইরাসের প্রকোপ কোনোভাবেই কমছে না। অদৃশ্য এই ভাইরাসে দিন দিন শনাক্ত আর মৃত্যুর রেকর্ড ভাঙছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে বিভাগে ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময়ে নতুন করে রেকর্ড ১ হাজার ৪৬৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

অন্যদিকে সোমবার পর্যন্ত খুলনায় করোনায় মৃতের সংখ্যা এক হাজার ছাড়িয়েছে। একই সঙ্গে শনাক্তের সংখ্যা ৫৩ হাজার ছাড়িয়েছে।

খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক রাশেদা সুলতানা সোমবার দুপুরে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

চিকিৎসকরা বলছেন, শুধু লকডাউন অথবা স্বাস্থ্যসেবা বৃদ্ধি করে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়। নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজন সচেতনতা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের দপ্তর সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের মধ্যে কুষ্টিয়ায় সর্বোচ্চ ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এ ছাড়া খুলনায় ছয়জন, মেহেরপুরে চারজন, ঝিনাইদহে চারজন, চুয়াডাঙ্গায় দুজন, বাগেরহাটে দুজন, যশোরে একজন, সাতক্ষীরায় একজন এবং নড়াইলে একজন মারা গেছেন।

খুলনা বিভাগের মধ্যে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় চুয়াডাঙ্গায় গত বছরের ১৯ মার্চ। করোনা সংক্রমণের শুরু থেকে সোমবার সকাল পর্যন্ত বিভাগের ১০ জেলায় মোট শনাক্ত হয়েছে ৫৩ হাজার ৬৩১ জন। আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ হাজার ১১ জন। এ সময় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩৬ হাজার ৯৭৮ জন।

খুলনা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা. শেখ সাদিয়া মনোয়ারা ঊষা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় খুলনা জেলায় ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে।

এ ছাড়া খুলনা জেলা ও মহানগরীতে ৭৬৮টি নমুনা পরীক্ষা করে ২৯৯ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। যা মোট নমুনা পরীক্ষার ৪০ শতাংশ।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জেলাভিত্তিক করোনা সংক্রান্ত তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, ২৪ ঘণ্টায় খুলনা জেলায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩১১ জনের।

এ পর্যন্ত মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৪ হাজার ৯৪৩ জনের। এ সময় মারা গেছেন ২৪৬ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১০ হাজার ৬১১ জন।

এ ছাড়া বাগেরহাটে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১২৪ জনের।

এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ হাজার ১৮৩ জনের। আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৮১ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ২৩৩ জন।

সাতক্ষীরায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ২৬ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ হাজার ৩০০ জন এবং মারা গেছেন ৬৭ জন। এ সময় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ হাজার ৩৭৩ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের সর্বোচ্চ করোনা শনাক্ত হয়েছে যশোরে। নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ৪৫৪ জন।

এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ১১ হাজার ৭৭৯ জন। মোট মারা গেছেন ১৩৪ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৬ হাজার ৮৮৯ জন।

২৪ ঘণ্টায় নড়াইলে নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ৫৩ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ৫৮১ জন। মোট মারা গেছেন ৪১ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৯৬১ জন।

মাগুরায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৫০৬ জন। মোট মারা গেছেন ২৫ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ২৩৮ জন।

ঝিনাইদহে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১৪৩ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪ হাজার ১৩৭ জন। মোট মারা গেছেন ৮৭ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৯৮০ জন।

একদিনে বিভাগে সর্বোচ্চ ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে কুষ্টিয়ায়। ২৪ ঘণ্টায় জেলায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১৭২ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৭ হাজার ৩৫৬ জন। মোট মারা গেছেন ১৯৮ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৫ হাজার ৩৯৫ জন।

চুয়াডাঙ্গায় ২৪ ঘণ্টায়নতুনকরে শনাক্ত হয়েছে ৮৪ জন। এ নিয়ে জেলায় মোটকরোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ হাজার ১৬৭ জন। মোটমারা গেছেন ৮৬ জনএবং সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ১৬২ জন।

মেহেরপুরে নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ৭৫ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৬৭৬ জন। আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪৬ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ১৩০ জন।

খুলনার সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। শুধু চিকিৎসা সেবা বা বিধিনিষেধে কাজ হবে না। মানুষকে সচেতন হতে হবে। সার্বক্ষণিক মাস্ক পরিধান করতে হবে। মাস্ক পরিধানের কোন বিকল্প নেই।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

এই বিভাগের আরও খবর
Copyright © The Invent
error: Content is protected !!