1. admin@theinventbd.com : admin :
  2. worksofine@rambler.ru : JefferyDof :
  3. kevin-caraballo@mainello5.tastyarabicacoffee.com : kevincaraballo :
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৪৩ অপরাহ্ন
সর্বশেষ
জলঢাকায় ফেন্সিডিল সহ গ্রেফতার- ২ পলাতক-১’জন মোটরসাইকেল জব্দ সৈয়দপুরে জীবিত স্বামীকে মৃত দেখিয়ে ১৭ বছর থেকে বিধবা ভাতা উত্তোলন, সমাজসেবা কর্তৃপক্ষ নির্বিকার ঝিকরগাছায় আর্সেনিক ঝুঁকি নিরসন প্রকল্পের অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত জলঢাকায় ১১ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশের মাঝে ১০৯টি বাইসাইকেল বিতরণ জলঢাকায় যানজটে জনদুর্ভোগ বেড়েই চলছে : নিরসনের দাবি পৌরবাসির বেনাপোলে গৃহহীনদের ঘর নিয়ে ভুমি অফিসের সহকারীর বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ। ঝিকরগাছায় সাপের কামড়ে ১ গৃহবধূর মৃত্যু বেনাপোলে র‍্যাবের অভিযানে গাজাসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী আটক সৈয়দপুরে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বাইসাইকেল বিতরণ সৈয়দপুরে সাহিত্য আসরের ৪থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন

লকডাউনে রিকশা ও সিএনজির রাজত্ব, ভোগান্তি সাধারণ মানুষ

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশকাল | মঙ্গলবার, ৬ এপ্রিল, ২০২১
  • ৪৫ বার পঠিত

করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে দেশে সাত দিনের কঠোর বিধিনিষেধ জারি করেছে সরকার। এই বিধিনিষেধের দ্বিতীয় দিন চলছে। গণপরিবহণ বন্ধ থাকায় মঙ্গলবার সকাল থেকে অফিস ও জরুরি কাজে বাইরে বের হওয়া মানুষদের ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। রিকশা ও সিএনজি ছাড়া কোনো পরিবহণই পাচ্ছেন না রাজধানীবাসী।

অনেকের অফিস খোলা থাকার কারণে তাদের বাইরে বের হতে হচ্ছে। আবার নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস কিনতে বা ওষুধের জন্যও কেউ কেউ বের হচ্ছেন।

প্রগতি স্বরণীতে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন হাসনাইন বাবু। তিনি বলেন, আগে সিএনজিতে প্রগতি স্বরণীতে যেতে ভাড়া লাগত ১০০ থেকে ১২০ টাকা। সেখানে এখন সিএনজিতে ভাড়া গুনতে হচ্ছে ২৫০-৩০০ টাকা।

হাসনাইন বলেন, একদিকে গণপরিবহণ বন্ধ আবার সরকারি-বেসরকারি অফিসেও খোলা। যানবাহন নেই বলে আমাদের কষ্টের সীমা নেই। রিকশায় অফিসে আসা-যাওয়া করতে বেশি ভাড়া এখন গুণতে হচ্ছে।

ধানমন্ডি থেকে রিকশায় করে মতিঝিল যাচ্ছিলেন বেসরকারি ব্যাংকের এক কর্মকর্তা।তিনি বলেন, আগে লাগতো ৬০ থেকে ৮০ টাকা, এখন সে ভাড়া দিতে হচ্ছে ১২০ থেকে ১৫০ টাকা। যখন সিএনজি নিতে চাইলাম সে ভাড়া শুনে তো তাজ্জব। ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা ভাড়া চাইলো সিএনজি চালক।

রিকশার চাহিদা বেশি থাকায় রিকশাচালকরাও সুযোগ বুঝে বেশি ভাড়া নিচ্ছেন বলে অভিযোগ যাত্রীদের।

সিএনজিচালিত অটোরিকশায় শেওড়াপাড়া থেকে কারওয়ান বাজারে আসতে আগে ভাড়া লাগতো ১২০ থেকে ১৫০ টাকা। সেখানে এখন ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা ভাড়া নিচ্ছেন সিএনজি চালকরা।এমনই অভিযোগ করেছেন কাজীপাড়া থেকে কারওয়ান বাজারগামী বেসরকারি চাকরিজীবী ফজলুর রহমান।

মিরপুর ১২ নম্বরে সিএনজি চালান আলআমিন। তিনি বলেন, করোনার কারণে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাত্রীদের সেবা দিচ্ছি। একটু ভাড়া বেশি নিচ্ছি। তবে আমাদের খরচও বেশি হচ্ছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

এই বিভাগের আরও খবর
Copyright © The Invent
error: Content is protected !!